জুমার দিনে যে দোয়া পড়লে ৮০ বছরের গুনাহ মাফ হয়

 

শুক্রবার বাদ আছর আমল

اللهم صل على محـدن النبي الأمي وعلى اله وسلم تسليمه

উচ্চারণ : আল্লাহুম্মা ছাল্লি আলা মুহাম্মাদিনিন নাবিয়্যিল উম্মিয়্যি ওয়া আলা

আলিহী ওয়া সাল্লিম তাছলীমা।

হযরত আবূ হুরায়রা (রা) থেকে বর্ণিত রাসূলে পাক (স) ইরশাদ করেন,

যে ব্যক্তি জুমুআর দিন আছরের নামাযের পর (উত্তম হলো নামাযের জায়গায় বসা অবস্থা) ৮০ বার এ দুরুদ শরীফ পাঠ করবে তাঁর ৮০ বছরের গুণাহ মাফ হবে

এবং ৮০ বছরের ইবাদাতের ছওয়াব তাঁর আমল নামায় লেখা হবে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে, জুমুআর দিন মাগরিবের আযানের আগে মসজিদে বসে খাস দুআ করলে তা বিশেষভাবে কবুল হয়। (আদদুররুল মানযুদ, পৃ. ১৬০)

 

জুমার দিনে যে দোয়া পড়লে ৮০ বছরের গুনাহ মাফ হয়

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

জাহান্নাম থেকে মুক্তির দোয়া আরবি

 

জাহান্নাম থেকে মুক্তির আমল

اللهم أجرني من النّار

উচ্চারণ : আল্লাহুম্মা আজিরনী মিনান্নার ।

অর্থ : হে আল্লাহ, আমাকে জাহান্নামের আযাব থেকে রক্ষা কর।

প্রিয় সাহাবী হযরত মুসলিম তামীমী (রা) জানান যে,

ফজর ও মাগরিবের নামাজের পর কারো সাথে কথা বলার আগেই রাসূলুল্লাহ (স) এ দুআ (৭ বার বা ২১ বার) পাঠের কথা বলেছেন।

ঐ দিনই যদি সংশ্লিষ্ট পাঠকারীর মৃত্যু হয়ে যায় তবে তাঁর জন্য জাহান্নাম হতে মুক্তি লিখে দেয়া হবে।

এই কালামের পর তিনবার “আল্লাহুম্মা আতিনাল জান্নাহ” পড়ার কথা কিতাবে এসেছে। (আবু দাউদ ৫০৭৯ এবং মেশকাম ২৩৯৬)

 

৮০ বছরের গুনাহ মাফের দোয়া আরবি

গুণাহ মাফের দোয়া

ربنا ظلمنا أنفسنا وإن لم تغفر لنا وترحمنا لنكونن من الخسرين *

উচ্চারণ : রাব্বানা জালামনা আন ফুসানা অইললাম তাগ ফিরলানা ওয়াতারহামনা লানা কুনান্না মিনাল খাছিরীন। – সূরা আরাফ : আয়াত ২৩

অর্থ হে আমাদের পালনকর্তা আমরা নিজেদের প্রতি জুলুম করেছি।

যদি আপনি আমাদেরকে ক্ষমা না করেন এবং অনুগ্রহ না করেন তবে আমরা অবশ্যই ধ্বংস হয়ে যাব। সূরা আল-আরাফের ২৩নং আয়াতে বর্ণিত ইপরোক্ত দুআটি মানবজাতির আদি পিতা ও মাতা হযরত আদম (আ) এবং হযরত হাওয়া (আ)

আল্লাহ রাব্বুল আলামীনের নিষেধ শয়তানের প্ররোচনায় ভুলে গিয়ে বিশেষ গাছের ফল খাওয়ার পর জান্নাতী পোশাক খুলে গেলে উল্লিখিত বাক্যগুলো উচ্চারণ করে তওবা করতেন। কৃতকর্মের জন্য আদম সন্তানেরও এ ভাষায় তওবা করা জরুরি।

কুরআনের বর্ণনা মতে তওবার ঐ বাক্যগুলো আল্লাহ পাকের পক্ষ থেকেই শিখিয়ে দেয়া হয়েছিল। (বাকারা ৪র্থ রুকু) এ বিষয়ে ইবনে আব্বাস (রা)-এর অভিমত প্রসিদ্ধ।

 

মা বাবার জন্য দোয়া আরবিতে

 

মা-বাবার জন্য উত্তম আমল

رب ارحمهما كما ربيني صغيرا

উচ্চারণঃ রাব্বির হামহুমা কামা রাব্বাইয়ানী ছাগীরা।

সূরা বনী ইসরাঈল : আয়াত ২৪

অর্থ : হে আমার প্রতিপালক! আমাদের (পিতা-মাতা) প্রতি সেভাবে দয়া রুকন যেভাবে শৈশবে তাঁরা আমাদের প্রতিপালন করেছেন।

সূরা বনী-ইসরাইলের ২৪নং আয়াতের অংশ। আল্লাহ পাক স্বয়ং তাঁকে ইবাদত করার পর পিতা-মাতার সাথে উত্তম ব্যবহারের আদেশ দিয়েছেন।

তাঁদের সাথে ‘উহ’ শব্দটিও উচ্চারণ করতে কুরআন মজিদে কঠিনভাবে নিষেধ করেছেন। সহীহ হাদীসে এসেছে, মৃত্যুর পর মা-বাবার জন্য নেক সন্তান দুআ করলে আল্লাহ কবুল করেন। সংশ্লিষ্ট সবার প্রতিনিয়ত এ দুআ পড়া চাই ।

 

আয়াতুল কুরসির ফজিলত সমূহ

 

আয়াতুল কুরছীর ফযিলত

নিজ দেহ, গৃহ বা অন্য কারো গৃহ বন্ধ করতে হলে এশার নামাযান্তে আয়াতুল কুরছী ৩ বার পাঠ করে বুকে অথবা দু’হাতের তালুতে ফুঁক দিয়ে ১ বার

অথবা ৩ বার জোরে তালি দিবে। তালির শব্দ যতদূর পৌছবে ততদূর পর্যন্ত জিন-পরী, ভূত-প্রেত, দৈত্য-দানব কিছুই আসর করতে পারবে না। অন্ধকারে

চলাফেরা করলে সাপ-বিচ্ছু, জন্তু-জানোয়ার কোন ক্ষতি করতে পারবে না। এ দোয়া লিখে দোকানের দরজায় ঝুলিয়ে রাখলে

তার আয় রোজগার বৃদ্ধি পাবে। অর্থের জন্য সে কারো মুখাপেক্ষী হবে না। এ আয়াত বেশি পরিমাণে পাঠ করলে কবর আযাব মাফ হয়।

 

আয়াতুল কুরসির ফজিলত কি কি

একাধারে ৩১৩ বার পাঠ করলে শত্রু তার নিকট পরাজিত হবে।

তার জান মাল আল্লাহর রহমতে ফেরেশ্তারা হেফাজত করবে। যদি কেউ প্রত্যেক ফরয নামাযের পর এ আয়াত শরীফ তেলাওয়াত করে, তবে তার জান্নাতে যাওয়ার পথে মৃত্যু ব্যতীত আর কোন বাঁধা থাকবে না ।

 

জুমার দিনে যে দোয়া পড়লে ৮০ বছরের গুনাহ মাফ হয়

 

যাদু-টোনা থেকে মুক্তির আমল

আজকাল যাদু টোনার প্রভাবে বহু পরিবারে বিভিন্ন ধরনের সমস্যার সৃষ্টি হচ্ছে

বর্তমান সমাজের অনেক মানুষ যাদুটনার কারণে পেরেশান হয়ে আছেন আপনিও কি একই পরিস্থিতির শিকার তাহলে শ্রবণ করি যাদু টোনার সমস্যা থেকে সুরক্ষিত থাকতে

বিশেষ আমলটি করুন সারা বছর জাদুর থেকে নিরাপত্তা লাভের জন্য

পবিত্র শবে বরাতের রাতে বরই গাছের সারটি পাতা নিয়ে পানিতে সিদ্ধ করুন অথবা পানি যখন কুসুম গরম হয়ে যাবে গোসল করে নিবেন ইনশাআল্লাহ সারা বছর জাদুর প্রভাব থেকে নিরাপদে থাকবেন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *